বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ খাদ্য রফতানিকারক দেশ হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ

4162422417_195f97fb46তাহিয়া তাবাসসুম : বাংলাদেশ ধীরে ধীরে খাদ্য রফতানির শীর্ষ দেশে পরিণত হতে যাচ্ছে। সঠিক ব্যবস্থাপনা ও একই জমিতে বছরে তিন ধরনের ফসল উৎপাদনই এই সফলতার দিকে দেশটিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। গালফ টাইমস

দেশটির কৃষির সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা বাণিজ্যিকভাবে ধীরে ধীরে খাপ খাইয়ে নিচ্ছেন নতুন নতুন প্রযুক্তির সঙ্গে। তাতে দেশটিতে খাদ্যশস্যের দিনদিন উৎপাদন বাড়ছে। বিজ্ঞানী ও গবেষকরা বাংলাদেশের কৃষিখাত পরিবর্তন করে দিচ্ছে। নতুন হাইব্রিড ফসলে খাদ্যের মান বৃদ্ধি করে ভোক্তাদের চাহিদা পূরণ করা হচ্ছে।

আন্তর্জাতিক ধান গবেষণা কেন্দ্র (আইআরআরআই) তথ্য অনুযায়ী, স্বাধীনতার পরে বাংলাদেশের খাদ্যশস্যের উৎপাদন তিনগুন বেড়েছে। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশে ধানের উৎপাদন ছিল ১০ মিলিয়ন মেট্রিক টন। আর বর্তমানে এই দেশের ধানের উৎপাদন ৩৩.৮৩ মিলিয়ন মেট্রিক টন।

বাংলাদেশ বর্তমানে বিশ্বে ধান উৎপাদনে ষষ্ঠ। ৮.৪৪ মিলিয়ন হেক্টর জমিতে ফসল উৎপাদন করা হচ্ছে। ১৯৯০ সালের পরে এবার ৭গুণ খাদ্যশস্য উৎপাদন হয়েছে। দেশটির ৭৫ শতাংশ ফসল আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে উৎপাদন করা হয়।

বাংলাদেশে প্রায় ৮০ ভাগ আবাদযোগ্য জমিতে ধান চাষ করা হয়। এটি বাংলাদেশের প্রধান খাদ্যশস্য। ২০৩০ সালের মধ্যে বাংলাদেশ ৩৫.২ মিলিয়ন টন থেকে ৩৯ মিলিয়ন ধান উৎপাদন করবে।

উন্নয়নশীল দেশের মধ্যে বাংলাদেশের খাদ্যে স্বয়ং সম্পূর্ণ হওয়ার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। নিজেদের গবেষণার মাধ্যমেই তারা এই সফলতা এনেছে। বাংলাদেশ বিশ্বের অন্যতম ধান উৎপাদনশীল দেশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *