মিয়ানমারে বিনিয়োগের সময় এখনই

imagesআয়তন বাংলাদেশের চার গুণ। জনসংখ্যা মাত্র ৬ কোটি। পাহাড়-পর্বতের এই দেশটিতে বড় ধরণের ব্যবসা-বাণিজ্যের সুযোগ তেমন একটা ছিলো না। প্রাকৃতিক সম্পদসহ কিছু দিক থেকে বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে আছে মিয়ানমার। তবে পিছিয়ে আছে অর্থনীতিতে। এখন পাল্টাতে শুরু করেছে পরিবেশ। দেশটি এখন বিদেশি বিনিয়োগ আকৃষ্ট করে দ্রুত উন্নতি করতে চায়। এ সুযোগটি নিতে পারেন বাংলাদেশি ব্যবসায়িরাও।

বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, এখনই মোক্ষম সময় বাংলাদেশের মিয়ানমারে বিনিয়োগ করার। ব্যবসা-বাণিজ্য, বিনিয়োগসহ জনসক্তি রপ্তানির বিশাল এক বাজার তৈরি হয়েছে মিয়ানমারে। আর সে বাজার ধরতে ভারতসহ অন্যান্য অনেক দেশ প্রতিযোগিতায় নেমেছে। আর সেই প্রতিযোগিতায় টিকতে হলে এখনই উদ্যোগী হয়ে কার্যকর ভূমিকা নিতে হবে।

তবে বিদেশি বিনিয়োগে বাংলাদেশি ব্যবসায়িদের পছন্দের শীর্ষে আছে মিয়ানমার। আগে বাংলাদেশ মিয়ানমারের যোগাযোগের ক্ষেত্রে বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতা ছিল কিন্তু এখন বিষয়টি খুব সহজ হয়ে গেছে।

ব্যবসায়িরা বলেন, মিয়ানমারে ব্যবসা-বানিজ্যের ক্ষেত্রে যে সম্ভাবনার সৃষ্টি হচ্ছে এ বাজার আমরা চীন, ভিয়েতনাম বা থাইল্যান্ডের কাছে হারাবো না, আমরা হারাবো ইন্ডিয়ানদের কাছে।

মিয়ানমারে বিদেশি বিনিয়োগের যে সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে তাতে দেশটি বড় জনশক্তি আমদানিকার দেশে পরিণত হতে যাচ্ছে বলে ধারণা ব্যবসায়িদের।

বিনিয়োগকারিরা আরো বলেন, যেহেতু বাণিজ্যের পথ উন্মুক্ত হয়েছে এবং এখানে প্রায় এক হাজার বড় বড় বিল্ডিং নির্মিত হবে এবং সেখানে তাদের সেই পরিমাণ লেবার নেই, তাই বাংলাদেশ এখানে একটি বড় পরিমাণের জনশক্তি রপ্তানির সুযোগ রয়েছে।

সূত্র : যমুনা টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *