মোবাইল ফোনে ব্রেন ক্যান্সারের ঝুঁকি নেই

33E4D0DC00000578-3576681-image-a-1_1462527838451ইয়ামিন বিন রফিক : অস্ট্রেলিয়ার চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা গত ২৯ বছরে এমন কোনো তথ্য পাননি যাতে মোবাইল ফোন ব্যবহারে ব্রেন ক্যান্সারের ঝুঁকি বৃদ্ধি পায় বলে প্রমাণিত হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে মোবাইল ফোন ব্যবহারে ব্রেন ক্যান্সারের ঝুঁকি রয়েছে বলে যে ধারণা রয়েছে ৩০ বছরের গবেষণায় তা ভুল প্রমাণিত হয়েছে। এজন্যে তারা ১৯৮২ সাল থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত এক জরিপ পরিচালনা করেন। এতে ওই সময়ে ১৯ হাজার ৮৫৮ জন পুরুষ ও ১৪ হাজার ২২২ জন নারী ক্যান্সার রোগীর তথ্য উপাত্ত বিশ্লেষণ করে নিশ্চিত হন যে মোবাইল ফোন ব্যবহারে ব্রেন ক্যান্সারের কোনো ঝুঁকি থাকে না।

১৯৯৩ সালে অস্ট্রেলিয়ায় ৯ ভাগ মানুষ মোবাইল ফোন ব্যবহার করলেও তা বর্তমানে বৃদ্ধি পেয়েছে ৯০ ভাগে। একই সময়ে ২০ থেকে ৮৪ বছরের ক্যান্সার রোগীর সংখ্যা খুব সামান্যই বৃদ্ধি পেয়েছে। ১৯৮৭ সালে মোবাইল ফোন ব্যবহার শুরু হওয়ার আগে অস্ট্রেলিয়ায় টিউমার রোগীর সংখ্যা বেশ বৃদ্ধি পায়। তবে টিউমার কিংবা ক্যান্সার রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেলেও তাদের অধিকাংশের বয়স ৭০ বছরের অধিক।

জরিপটি পরিচালনা করেছেন এমন একজন হচ্ছেন অধ্যাপক সিমন চ্যাপম্যন যিনি অধ্যাপনা করছেন সিডনি ইউনিভার্সিটিতে, তিনি জানান, মোবাইল ফোন ব্যবহারের সময়ে যে বিকিরণ ঘটে তা মস্তিস্ক বা ডিএনএ’র কোনো ক্ষতি করে না। এ বছরের শুরুতে চিকিৎসকরা হুঁশিয়ার করে দিয়ে বলেছিলেন, মোবাইল ফোন ব্যবহারে ইলেক্ট্রম্যাগনেটিক বিকিরণ হয় যার ফলে ব্রেন ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ডেইলি মেইল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *